Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

আশুলিয়া নিজস্ব টর্চার সেলে আটকে নির্যাতন করে নয়ন

লেখক:
প্রকাশ: ১ বছর আগে

Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

দআশুলিয়ায় নয়নের অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকাবাসী ব্যবসা এবং নতুন বাড়ি করলে দিতে হয় চাঁদা, চাঁদার টাকা না দিলেই ধরে নিয়ে টর্চার সেলে আটকিয়ে চালায় অমানবিক নির্যাতন! নিরীহ লোকদের মারধরের অভিযোগও রয়েছে সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানাধীন পাথালিয়া ইউনিয়ন পানধোয়া গ্রামের বিএনপির সাবেক ক্যাডার পাথালিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক নয়নের বিরুদ্ধে।

পানধোয়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে কামরুল ইসলাম নয়ন।চার দলীয় ঐক্য জোটের আমলে বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডার হিসেবে অত্র এলাকায় বেশ পরিচিত ছিল বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কতিপয় সুবিধাভোগী নেতার প্রশ্রয়ে হয়ে যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা।আর পাথালিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদটি বাগিয়ে নিয়েই বেপরোয়া ভাবে শুরু করেন আওয়ামী লীগের কর্মী ও নিরীহ লোকদের ওপর সিমাহীন অত্যাচার আর বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদাবাজী। থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের একজন আওয়ামী লীগ নেতার ছত্র ছায়ায় থেকে এসব অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন সাধারণ মানুষ। এর সঙ্গে সহায়ক শক্তি হিসেবে রয়েছে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাস প্রতৃতির বখাটে যুবকরা।

জুয়েলারি ব্যবসায়ী কার্তিক ঘোষের স্বর্ণের দোকানে লুটপাটের সময় কার্তিকের উপর নয়ন বাহিনীর অত্যাচার আর মারপিটের কঠিন দৃশ্য সইতে না পেরে ঘটনাস্থলেই হার্ড স্টক করে মারা যান মুক্তা (৪৫) নামের এক গৃহবধূ । সেই মারধরের পর থেকেই পাগল হয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন কার্তিক। স্বেচ্ছাসেবকলীগের এই নেতা এলাকায় যা- ইচ্ছে তা করলেও অজানা কারণে পুলিশ তাকে করছেনা গ্রেফতার। নয়েেনর বিরুদ্ধে থানায় একাধীক মামলা থাকলেও অদৃশ্য ইশারায় থাকছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পানধোয়া বাজারের চা দোকানদার নজরুল ইসলাম, কম্পিউটার ব্যবসায়ী মনিরুল ইসলাম মাসুদের কাছে চাঁদা দাবী করে নয়ন। ধার্যকৃত চাদার টাকা না পেয়ে বাজারেই জনসম্মুখে হাতুড়ে পেটা করে গুরুতর জখম করে পরে নজরুল বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

সম্প্রতি ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি শামীম শেখের ছেলে রনির কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে নয়ন, চাঁদার টাকা না পেয়ে রনি ও রনির ভাই ফয়সালকে রাতে ডেকে নিয়ে একটি ঘরে আটকিয়ে রেখে বেধম মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে, পরে শামীম শেখ থানায় অভিযোগ করলেও ইউনিয়ন আ:লীগের এক নেতার মধ্যস্থতায় রফা করার পায়তারা চলছে বলে জানা গেছে।
পানধোয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এরশাদ হোসেন জানান, নয়ন আগে বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিল। আওয়ামীগ ক্ষমতায় আসার পর হঠাৎ করে সে আঃলীগের রাজরীতি শুরু করে এবং ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ এনেই এলাকায় শুরু করে চাঁদাবাজী। চাদার টাকা না দিলে তাঁর নিজস্ব টর্চার সেলে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে।

তবে কামরুল ইসলাম নয়ন তাঁর বিরুদ্ধে এ সকল অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেছেন।