সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গলাচিপায় ৫০০ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার ১ পতিত জমি চাষে সব ধরণের সহযোগীতা করা হবে: নোয়াখালীতে কৃষি মন্ত্রী নগরীর ২৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সাংবাদিককে অশ্লীল ভাষা গালমন্দ গলাচিপায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইউ পি সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রচার চুনারুঘাট সীমান্তে থানা পুলিশের অভিযানে ভারতীয় চোরাই চা-পাতা সহ একজন আটক গলাচিপায় জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগ গফরগাঁওয়ে অপহৃত শিক্ষার্থী গাজীপুরে উদ্ধার, অপহরণকারী যুবক গ্রেফতার গফরগাঁওয়ে প্রবাসীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় অপহরণকারীর চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার ঝিকরগাছায় মানবাধিকার কল্যান ট্রাস্টের সহায়তায়জোড়া লাগলো আশার ভাঙা সংসার যশোরের শার্শায় মোটরসাইকেলের চাকায় পিষ্ট হয়ে ৬ বছরের ১ শিশু নিহত।

চরফ্যাশনে ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগ।

Coder Boss
  • সংবাদটি লিখা হয়েছে : শুক্রবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১২ জন পড়েছে

এআর সোহেব চৌধুরী চরফ্যাশন (ভোলা) থেকে: ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারীর বিরুদ্ধে ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার একাধীক অভিযোগেও নেয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা। চরফ্যাশন উপজেলার চরমানিকা ইউনিয়নের উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মারুফ হোসেনের বিরুদ্ধে গত জুলাই মাসে সেবা বঞ্চিত স্থানীয় এলাকাবাসী নানান অনিয়ম ও দূর্নীতিসহ এ কর্মকর্তার প্রত্যাহার চেয়ে মানববন্ধন করেন। এছাড়াও গত সেপ্টেম্বরে চরমানিকা মৌজার বন্দোবস্ত নেয়া সাড়ে ৪একর জমির খাজনা বাবদ ৩০টাকা করে ৩টি রসিদে ভূমি উন্নয়ন কর ৯০টাকা নির্ধারিত হলেও ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা জমি মালিক আঞ্জুমান আরা বেগমের কাছ থেকে নেয়া হয় চার হাজার টাকা। এ বিষয়ে একাধীক পত্র পত্রিকায় নিউজ প্রকাশের পরেও তাঁর বিরুদ্ধে নেয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা। অতিরিক্ত টাকা নেয়ার বিষয়ে ভূক্তভোগী ভোলা কলেজের ইংরেজি বিভাগের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা জসিম উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, আমার বাবা আবদুল মন্নানের নামে ৬৪ শতাংশ জমির চারশত আট টাকার ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করতে গেলে ভূমি কর্মকর্তা মারুফ হোসেন আমার কাছ থেকে নিয়েছেন পাঁচ হাজার টাকা। তিনি আরও বলেন, গত ২২ ডিসেম্বর খাজনা পরিশোধে তার কাছে গেলে অফিসে মূল খতিয়ানের কাগজপত্র নেই অজুহাত দেখিয়ে তিনি আমাকে চরফ্যাশন উপজেলা ভূমি অফিসে পাঠান। সেখান থেকে খতিয়ানের কপি এনে দিলেও ওই কপি দিয়ে হবেনা এবং সার্ভার সমস্যার কথা বলে একাধীকবার হয়রানি করে খাজনা পরিশোধ বাবদ চারশত আট টাকার রশিদ ধরিয়ে দেন। একাধীক অভিযোগ প্রসঙ্গে মারুফ হোসেন বলেন, এর আগে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মানববন্ধন করা হয়েছে এবং আমার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার যে নিউজ প্রকাশ হয়েছিলো আমি ওই নিউজের প্রতিবাদ নিউজ করিয়েছি। এবং বর্তমানে যে অভিযোগ উঠেছে তা মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র। তাদের খাজনা পরিশোধে যে টাকা নেয়া হয়েছে তার চারশত আট টাকার রশিদ দেয়া হয়েছে। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু আবদুল্লাহ বলেন, এ সংক্রান্ত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Agrajatra 24
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102