Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে পৌর সভা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণা ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা

লেখক:
প্রকাশ: ১ বছর আগে

Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি:
আগামী ৩০শে জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর আসন্ন পৌরসভার নির্বাচন। এই নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী শাহাজান আলী এবং জাতীয়তাবাদী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের মেয়র প্রার্থী এস কে সালাউদ্দিন বুলবুল সিডল প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পৌরসভার বিভিন্ন পাড়া, মহল্লায়,চায়ের দোকান, হোটেল, রেস্তোরাঁ, সহ বাড়ি বাড়ি, গিয়ে ভোটারদের সঙ্গে শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করছেন।ব্যক্তিগত ইমেজকে কাছে লাগিয়ে ভোটারদের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করছেন তারা। ভোটারদের মধ্যে তেমন উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা না গেলেও প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচার-প্রচারণা থেমে নেই।এবারের পৌর নির্বাচনে প্রথমবারের মতো আ.লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী মেয়র শাহাজান আলী পৌরসভার অবহেলিত হয়ে পড়ে থাকা সকল উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করার ঘোষণা দিয়েছেন। পৌরসভার উন্নয়নমূলক কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে সবার কাছে নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করছেন শাহাজান আলী। এদিকে বিএনপি দলিয়ো একক প্রার্থী বর্তমান পৌর বিএনপির আহ্বায়ক এস কে সালাউদ্দীন বুলবুল সিডল বিগত সময়ে জনগণের ভোটে দুইবার নির্বাচিত মেয়র ছিলেন। তার সময় পৌর এলাকার ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছেন। তিনি নির্বাচিত হলে মডেল পৌর সভা উপহার দেবেন বলে ভোটারদের নিকট তার ধানের শীষ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করছেন।এদিকে বর্তমান মেয়র জাহিদুল ইসলাম জিরে বিগত পাঁচ বছর ধরে যে উন্নয়ন মূলোক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছেন তার দাবি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তাকে পুনরায় (নারিকেল গাছ) মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান।অন্যদিকে অপর (সতন্ত্র)মেয়র প্রার্থী সহিদুজ্জামান সেলিম (মোবাইল) প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী হিসেবে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।তিনি গত পৌর নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হয়ে নির্বাচন হের গিয়েও মাঠ ছাড়েননি তিনি।সব সময় পৌর বাসির সাথে থেকেছেন তিনি করোনা কালীন সময়ে এলাকা বাসীর আস্থার প্রতিক ছিলেন তিনি। এবার দল থাকে মনোনয়ন না পাওয়ায় সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয় লাভের আশায় এলাকায় প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। সেই সঙ্গে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা চালাচ্ছেন।এরই মধ্যে পৌর এলাকা জুড়ে ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের পোস্টারে। সকল প্রার্থীদের পক্ষে চালানো হচ্ছে ডিজিটাল প্রচারণা। সাধারণ ভোটাররা জানান, পৌরসভার উন্নয়নে নিবেদিত প্রাণ, যাকে যোগ্য মনে করবো, যে পৌর সভার উন্নয়ন মূলোক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবে, অবোহেলিত মানুষের পাশে থাকবে আমরা তাকে পৌর মেয়র নির্বাচিত করব। তবে শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়বে বলেও জানান তারা।প্রার্থীরা বলেন, কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকল ভোটার যেন ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারে সে ব্যাপারেও আমরা কাজ করে যাচ্ছি।