রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৫:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুসিক নির্বাচন: ১নং ওয়ার্ডের ভোটারদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন রোটা:আবুল হোসেন ছোটন চুনারুঘাটে চা শ্রমিক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা।। ১০ দফা দাবি উত্থাপন যশোরে ১ যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ। শার্শা ঝিকরগাছা বাজার গুলোতে জৈষ্ঠ্যের মধু মাসে রসে ভরা তালের শাঁস। গফরগাঁওয়ে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার ভারতে পাচার ৫ তরুণী বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যেমে বেনাপোল দিয়ে দেশে ফেরৎ। ভৈরব শান্তিপূর্ণ ভাবে উপজেলা ও পৌর বিএনপি’র দ্বি- বার্ষিক সন্মেলন অনুষ্ঠিত। ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীকে অর্থ সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়ালেন “তিতাস ইয়াং ফ্রেন্ডস ক্লাব” মুন্সীগঞ্জে বাংলা টিভির বর্ষপূর্তি উদযাপন ঘাট ইজারায় দূর্নীতি ইজারাদার ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হত্যার হুমকির অভিযোগ

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ
  • সংবাদটি লিখা হয়েছে : মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১
  • ৮৫ জন পড়েছে

পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হিরা বাচ্চুর বিরুদ্ধে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ কে হত্যার হুমকি দেবার অভিযোগে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

তবে বিষয় অস্বীকার করে চেয়ারম্যান পাল্টা অভিযোগ করে বলেন ওই কর্মকর্তা ঘুষ ছাড়া কোনো কাজ করেন না। এর আগেও উপজেলার সব জনপ্রতিনিধি তাকে উপজেলা সমন্বয় কমিটি থেকে বয়কট ঘোষণা করেছিলেন। এতকিছুর পরও তিনি নিজেকে সংশোধন না করায় ফোন করে তাকে সতর্ক করা হয়েছে।

পুঠিয়া থানায় করা জিডিতে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ উল্লেখ করেন,গত রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে তিনি কর্মস্থলে ছিলেন। ওই সময় উপজেলা চেয়ারম্যান তাকে ফোন দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান পরিচয় দিয়ে তাকে খুন, জখম করার হুমকি দেন। এ সময় তাকে চাকরি করতে দেবেন না বলেও ভয়ভীতি দেখান। এ ঘটনায় ওইদিনই জিডি করেন আবুল কালাম আজাদ।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান যখন তাকে হুমকি দেন, তখন তার চেম্বারে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, নারী ভাইস চেয়ারম্যানসহ শিক্ষক প্রতিনিধিদের কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। ঘটনার পর তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবগত করেছেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হিরা বাচ্চু বলেন, আমি কি খুনি যে তাকে হত্যার হুমকি দেব? ওই কর্মকর্তা ঘুষখোর টাকা ছাড়া কিছু বোঝে না । শিক্ষকসহ বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধি তার কাছে জিম্মি। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকরা দিনের পর দিন হয়রানির শিকার হন। আবার ঘুষ দিলে কাজ হয়,না দিলে দিনের পর দিন ঘুরতে হয়? ঘটনার দিন বিল নেওয়ার জন্য এক ইউপি সদস্য তার কাছে গিয়েছিলেন। বিল না দিয়ে তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আজাদ।

উপজেলা চেয়ারম্যান আরও বলেন, ওই কর্মকর্তা সবার সঙ্গেই খারাপ আচরণ করেছেন। এ জন্য সমন্বয় কমিটি থেকে তাকে এর আগে বয়কট ঘোষণা করা হয়। পরে স্থানীয় এমপি ডা. মনসুর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সামনে আর কখনোই এমন আচরণ করবেন না বলে ক্ষমা চান তিনি। এরপর সমন্বয় সভা হয়। এরপরও তিনি সংশোধন হননি।

পুঠিয়া থানার ওসি মো. সোহরাওয়ার্দী বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার জিডি গ্রহণ করে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Agrajatra 24
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102