মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১২:২০ পূর্বাহ্ন

বাউফলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আহত ২৩

Coder Boss
  • সংবাদটি লিখা হয়েছে : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ৯৯ জন পড়েছে

==================
মামুন মোল্লা বাউফল প্রতিনিধিঃ
গায়ে সাইকেল উঠিয়ে দেয়াকে কেন্দ্র করে পটুয়াখালীর বাউফলে একই গ্রামের দুই পক্ষের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২৩ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১৭জনকে বাউফল হাসপাতালে ও ৩ জনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মোঃ বাবুল হাওলাদারের ছেলে মোঃ জিয়াউর রহমান (৩০) কে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল পাঠানো হয়েছে। অন‍্যদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলার চন্দ্রদ্বীপ এলাকার চরমিয়াজান গ্রামের ইবতেদায়ী মাদ্রাসার দক্ষিন পার্শ্বে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাগেছে, বাউফল উপজেলাধীন চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের ৫ নং ওয়াডের বাসিন্দা সালাম হাওলাদারের ছেলে ও তার বাহিনী নির্বাচনের জের ধরে পূর্বের পরিকল্পনা অনুযায়ী ইবতেদায়ী মাদ্রাসার দক্ষিণ পার্শ্বে বাবুল হাওলাদারের ছেলে ও সমর্থকদের ওপর ধারালো বগি ধা ও লাঠি
, লোহার পাইপ দিয়ে বেধর মারমারপিত চালায়। এদিকে কামাল হাওলাদার পিছন থেকে জিয়াউর রহমান কে মাথায় বগি ধা দিয়ে কোপ মারে। কামাল জিয়াউর রহমান কে কোপ মেরে মটরসাইকেল যোগে স্হান ত‍্যাগ করে। পাশ্ববর্তী লোকজন রক্তাক্ত ও অচেতন অবস্থায় জিয়াউর রহমান কে বাড়ি নিয়ে যায়। জিয়াউর রহমান কে অতি দ্রত বাউফল ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। প্রার্থী বাবুল হাওলাদার পক্ষের সমর্থক ও নাজমুল হাওলাদার অপর মেম্বর প্রার্থী কামাল হোসেন পক্ষের সমর্থক। বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পরলে দুই পক্ষের লোকজন লাঠি ও লোহার পাইপ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে কামাল হোসেন পক্ষের কালু হাওলাদার, আকলিমা, লাইজু বেগম, কামাল হাওলাদার, সালাম হাওলাদার, কালাম হাওলাদার ও তাছলিমা সহ ৯জন আহত হয়। অপরদিকে বাবুল হাওলাদার পক্ষের জিয়াউর রহমান, সাইফুল হাওলাদার, ইউসুফ মৃধা, সোহেল, ইদ্রিস, নাসির সহ ১২জন আহত হয়। ওই সময়ে বাবুল হাওলাদার পক্ষের লোকজন কে হেনস্থা করার ষড়যন্ত্র চালায় সালাম । সালাম হাওলাদার নিজের বাড়িতে গিয়ে নিজেই তিনটি ঘরে নাটকীয় তান্ডব চালিয়ে ঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। প্রতক্ষ‍্যদর্শ্বীরা বলেন, বাবুল হাওলাদার কে হেনস্থা করার জন্য নিজেরাই নিজেদের ঘর ভাংচুর চালায়।

জরুরী বিভাগের ডাক্তার নূর আহম্মেদ সাঈদ জানান, আশংকাজনক অবস্থায় কালু হাওলাদার, আকলিমা ও জিয়াউর রহমানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরে জিয়াউর রহমান
কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বাউফল থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) আল মামুন বলেন , চন্দ্রদ্বীপের ঘটনার সত‍্যতা যাচাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে।

ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Agrajatra 24
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102