বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুমিল্লায় মাদক কারবারিদের আতংকের আরেক নাম ডিএনসি ও টাস্কফোর্স! চুনারুঘাটে জমিতে মাটি কাটায় বাধা দেওয়ায় প্রতিপক্ষের হামলা। ৩ মহিলা আহত বাগমারায় যুবদলের ফরম বিতরণ অনুষ্ঠিত বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন রাজশাহী বাগমারা থানা পুলিশে’র পৃথক অভিযানে গ্রেপ্তার ৪ নওগাঁয় দুই দিনব্যাপী শিশু মেলার উদ্বোধন সময়ের বিবর্তনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আমাদের দূয়ারে, এর সঠিক ব্যবহার জরুরী গলাচিপায় মৎস্য জীবী লীগের সাংগঠনিক সভায় কমিটির রদবদল কান উৎসবে বঙ্গবন্ধু বায়োপিকের ট্রেইলার উদ্বোধনে ফ্রান্সের পথে তথ্যমন্ত্রী গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার কমিটির সভা

বিতর্কিত সাবু শপের ক্রিম মেখে ত্বক নিয়ে ঝুঁকিতে তরুণী ; যা বললেন ২ ভুক্তভোগী

Coder Boss
  • সংবাদটি লিখা হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১
  • ৭০৪৯ জন পড়েছে

 

রিপোর্টঃ মাহাদী হাসান-

 

সম্প্রতি রাজধানীতে সাবু শপ নামে একটি প্রসাধনী বিক্রির শোরুম সিলগালা করে দেয় সিআইডি। বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে ক্ষতিকর পারদযুক্ত ও অনুমোদনবিহীন প্রসাধনী বিক্রির কারণে সাবু শপের বসুন্ধরা, ধানমন্ডি, ও মিরপুরের ৩ টি শপ সিলগালা করে দেয় সিআইডি। অগ্রযাত্রা’র অনুসন্ধানী টিম সাবু শপের ২ জন নিয়মিত ক্রেতার মন্তব্য সংগ্রহ করেছে। তার মধ্যে একজনের দাবি সাবু শপের ফেসবুক পেজের চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে তাদের প্রডাক্ট ব্যবহার করে শারিরীকভাবে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তিনি। আরেকজন ভুক্তভোগী বলছেন সাবু শপের অতিরঞ্জিত কথাবার্তায় অনেকেই প্রতারণার শিকার হয়েছেন। অগ্রযাত্রা’র পাঠকদের জন্য ঐ ২ ভুক্তভোগীর মন্তব্য হুবহু প্রকাশ করা হলো-

এনা মল্লিকঃ

আমি এনা মল্লিক, আমি আজকে তোমাদের কে অনলাইন থেকে বিউটি প্রোডাক্ট কিনে আমার চরম পর্যায়ের ভোগান্তির কথা শেয়ার করবো।

রাইট নাও আমার এই পোস্টটি টাইপ করতেই খুব খারাপ লাগছে কারণ আমি ভীষণ রকমের অসুস্থ হয়ে পরেছি।

গত সপ্তাহে যখন লোকড ডাউন দেওয়া হয় তখন আমি বাসায় বসে বসে বিভিন্ন ধরনের কসমেটিকস পেইজের বিউটি প্রোডাক্টের লাইভ দেখছিলাম

Sabu Shop নামের এই পেইজের একটি লাইভ দেখে এই পেইজের যে ওনার মিস সাবু উনার মার্কেটিং এর ফাঁদে আমি পরে যাই।

এরপর আমি উনাদের পেইজ থেকে একটা প্রোডাক্ট পার্চেজ করি যার নাম “ডল খাজানা ব্রাইটেনিং ক্রিম”
যার মূল্য ১৫০০/ টাকা।

এরপর উনারা বলেছিলো যে এইটা রাতে লাগাতে তাহলে ৭ দিনের মাথায় নাকি মুখের ব্রণের কালো দাগ চলে যাবে এবং স্কিনও নাকি গ্লোয়িং হবে।

আমি পার্চেজ করার পর ৩ দিন প্রোডাক্ট টি আমার মুখে এবং গলায় লাগাই

১ম দিন কোনো সমস্যাই হয় নি কিন্তুু ২য় দিনে দেখি আমার মুখে এবং গলায় চুলকাচ্ছে!

৩য় দিনে তোহ্ লাল লাল হয়ে গেলো পুরাই, তোহ্ আমার স্কিন এবং গলায় এই অবস্থা দেখে তৎক্ষনাৎ Sabu Shop পেইজে নোক দিয়ে জানালাম এবং বারংবার নোক দেওয়ার পর তারা আমাকে কোনো সল্যুশনই দিলো নাহ্।
তারপরও তাদের কে আমি নোক দিতে থাকি কারণ তাদের প্রোডাক্ট অতএব সমস্যার সমাধান তারাই করে দিবে এই আশায়।

কিন্তুু তাদের মডারেটর সারাদিনে আমার টেক্সটই সিন করলো নাহ্।

এর মধ্যে তোহ্ আমার অবস্থা পুরোই খারাপ চুলকাতে চুলকাতে জখম হয়ে গিয়েছে স্কিন।

রাতে Sabu Shop এর ওনার লাইভে আসলে আমি প্রথমে তাকে লাইভে আমার সমস্যার কথা বলি আমার এই আইডি দিয়ে তারপর লক্ষ্য করলাম যে মিস সাবু আমার কমেন্ট এড়িয়ে যাচ্ছেন এরপর আমি তাকে কমেন্টে লিখলাম যে “Why you are not noticing your customers issue ” তখন সে আমাকে বললো যে আপি আপনি মডারেটরদের সাথে কথা বলুন
কিন্তুু আমি তার মডারেটরের সাথে কথা বলার জন্য ইনবক্সে গিয়ে দেখি যে তারা আমাকে ব্লক করে দিয়েছেন।

কতো বড় চিটার আর বাটপারি বিজনেস চিন্তা করেন আপনারা?

এরপর আমি আমার আরেক আইডি দিয়ে তার লাইভে পুনরায় কমেন্ট করি যে

কাস্টমারের সমস্যার সমাধান না দিয়ে আপনি তাদের কে ব্লক করে দেন? আপনার নামে মামলা করা উচিত, রোজা রমজানের দিন বাটপারির বিজনেস শুরু করেছেন আপনি!!!

তখন সে লাউভে এক্টিং করা শুরু করে যে তার কোন কাস্টমারের ৬ মাসের বাচ্চা নাকি অসুস্থ ঐ জন্য তার নাকি ভালো লাগছে নাহ্ হেন, তেন্ সে নাকি আর লাইভ কন্টিনিও করবেন নাহ্

সব কিন্তুু নাটক উনাকে যখন আমি মামলা করবার কথা বারবার লাইভে বলেছি উনি প্রথমে নার্ভাস হয়ে গিয়েছিলো তারপর থেকেই সে আবোল তাবোল বলা শুরু করেছে।

এরপর সে আমার ঐ আইডিও ব্লক করে দিয়ে আমাকে লাইভে সেলার বানিয়ে দিয়েছে হাস্যকর!

আমি কিন্তুু সেলার নই আমি তার কাস্টমার।

এবং আমার কাছে তার যথেষ্ট প্রমাণ আছে,

আমার স্কিনের যে বাজে অবস্থা হয়েছে আমি চাই নাহ্ অন্য কোন আপি এই সেইম সিচুয়েশনে পরুক

আমি আসলেই বুঝতেছি নাহ্ এখন আমার স্কিনের জন্য কি করা উচিত???

আর Sabu Shop এর ওনার কে ঠিক কি করা উচিত সবাই আমাকে বলুন!!!!

 

ফারজানা আক্তারঃ

আমি ফার্স্ট টাইম বলবো আমি উনার একজন অন্ধ ভক্ত ছিলাম আমি আমার কাজিন দের সাথে উনার পেজের পরিচয় করিয়ে দিয়েছি আরো অনেককে বলেছি উনি খুব ভালো প্রোডাক্ট বিক্রি করে উনার থেকে আমার খালাতো বোন আরো আত্মীয়-স্বজন অনেকেই প্রোডাক্ট নিয়েছে আমি রেগুলার ওনার লাইভ দেখতাম মনোযোগ দিয়ে উনার লাইভ আমার না দেখলে ভালো লাগতো না প্রতিদিন অপেক্ষা করতাম উনি কখন আসবে আমি যখন প্রতিদিন উনার লাইভ দেখি দেখি উনি এক এক সময় এক এক কথা বলে তখন আমি ভাবতে থাকি উনার তো কথা-কাজে কোনো মিল নেই এক এক দিন এক এক প্রডাক্ট আনে বলে এটা মাখলে সাদা হয়ে যাবেন আমি আগে থেকেই ফর্সা আমি ফর্সা হওয়ার ক্রিম টা কম ব্যবহার করেছি আমার আম্মুর জন্য এনেছি কোন কাজ হয়নি আমি ওনার থেকে অনেক প্রোডাক্ট কিনেছি আমার কাছে বিলগুলো আছে উনি বলতো উনি নিজে ইমপোর্ট করে একদিন হঠাৎ লাইভে এসে আজ থেকে দেড় মাস আগে বলছে ইমপোর্ট করা অনেক কষ্ট অনেক ঝামেলার কাজ আগেতো ভাইদের কাছ থেকে নিতাম কষ্ট টা বুঝতাম না তখন আমি ওনাকে বলি কমেন্ট এর মাধ্যমে তাহলে আপনি কি এতদিন মিথ্যা কথা বলছেন আপনি নিজে ইমপোর্ট করেন তাহলে আজকে কেন বলছেন এ কথা তখন উনি আমাকে 5 মিনিট পর ফোন করে কমেন্ট করার তখন আমি ফোনটা রিসিভ করি তখন উনি আমাকে বোঝায় দেখেন আপু এখন আপনার সাথে আমার পরিচয় হয়েছে আমি যদি আপনাকে দিয়ে আপনার লাইসেন্স এর মাধ্যমে কিছু আনি আমি কি বলবো না এটা আমার আমি নিজে ইম্পোর্ট করি তখন আমি ওনাকে আর কিছু বলি না আমি যে তোমাকে ফোন করেছে একটা মানুষকে তো সরাসরি লজ্জা দেয়া যায় না আমার সাথে অনেক কথা বলল আমাকে বুঝানোর চেষ্টা করল আমি অনেক পছন্দ করতাম উনাকে আমাদের বাংলাদেশের মেয়েরা এতো সুন্দরীর পূজারী হয়ে গেছে কাউকে অন্ধের মত বিশ্বাস করতে নেই তার ভুলটা মাঝেমধ্যে ধরিয়ে দিতে হয় আর মনে মনে ভেবেছি অনে চাপাবাজ গাড়ির জন্য একদিন পস্তাবে এত চাপা মারতে হয় না আর মানুষকে সব সময় ছোট করে কথা বলতো আমার এগুলো খুব খারাপ লাগত তখন থেকে উনার প্রতি থেকে আমার রুচি উঠে যায় তখন থেকে আমি ওনার লাইভ দেখা বন্ধ করে দিই নিজের ফল্ট উনি নিজেই ধরা দেয় উনার কথার মাধ্যমে কিন্তু সবাই এটা বুঝতে চায় না পাগলের মত ভালবাসে উনাকে উনি জেটা বলে সেটাই বিশ্বাস করে কাউকে কখনো অন্ধের মত বিশ্বাস করতে নেই উনিত 1 টাকা কম রাখে না সবকিছু দাম অনেক বেশি রাখে আমার সবচেয়ে বেশি খারাপ লাগে উনি মানুষকে অনেক ছোট করে কথা বলে কাকে কি বলবে উনি বুঝতেই পারেনা উনার মেন্টালিটি সমস্যা আছে আমার মনে হয় একটা প্রোডাক্ট বিক্রি করে দুই হাজার টাকা লাভ করে কাজের কাজ কিছুই হয় না অযথা আমাদের পকেটের টাকা খালি হচ্ছে আরও হাস্যকর কথা হল উনার ফার্মেসি থ্রি মাখলে নাকি ট্যারা চোখ ভাল হয়ে যায় যাদের প্যারালাইসিস হয়ে মুখ বেকা হয়ে গেছে উইটা নাকি ঠিক হয়ে যাবে যাদের পেটে বাচ্চা হয় না তাদের নাকি বাচ্চা হবে এটি কোন ধরনের কথাবার্তা পাগলের মত খুব হাস্যকর কথা আমরা হয়েছি আরো বড় পাগল কারণ পাগলের পাগলামি দেখে আমরা পাগল হয়ে গেছি আশা করি উনি এখন বুঝতে পারবে উনার ভুলগুলি।

বিঃদ্রঃ বিতর্কিত সাবু শপের ব্যাপারে অগ্রযাত্রা’র অনুসন্ধান চলমান আছে,খুব শীঘ্রই আসছে আরো বিস্তারিত….

ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Agrajatra 24
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102