1. admin@agrajatra24.com : Agrajatra 24 :
  2. Ashrafalifaruki030@gmail.com : আশরাফ আলী ফারুকী : আশরাফ আলী ফারুকী
  3. editor@agrajatra.com : News :
যুবককে ডেকে এনে রাতভর নির্যাতনের পর কিশোরীর সাথে বিয়ের আয়োজন - Agrajatra24.com
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহীতে পুত্রবধূর স্বীকৃতির দাবিতে অনশন করতে গিয়ে লাঞ্ছিতর অভিযোগ তাহেরপুর ৬৫০ পিছ ইয়াবা, ১২ গ্রাম হিরোইন ও নগদ ৬১ হাজার টাকা সহ আটক ১ বাঁশখালী ভূমি অফিসের দালাল ফোরকান এসি ল্যান্ডের হাতে আটক সুন্দরগঞ্জে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতীমা বিসর্জন রাজাপুরে দোলনায় ঝুলতে গিয়ে গলায় ফাঁস শিশু শিক্ষার্থীর মৃত্যু যশোর শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার হারিয়ে যাওয়া ৫০টি খাতা ১৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার, সুন্দরগঞ্জ পৌর বাজারের সামন থেকে প্রকাশ্যে মটর সাইকেল চুরি আশুগঞ্জ থেকে ২০৩ বোতল ফেন্সিডিল’সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ ভৈরব আশুগঞ্জ থেকে ২০৩ বোতল ফেন্সিডিল’সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ ভৈরব শরীয়তপুরের ডামুড্যায় জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস পালিত ঝালকাঠিতে হত্যার পাঁচ বছর পর কঙ্কাল উদ্ধার করলো সিআইডি পুলিশ ধামইরহাটে ৩ শতাধিক রোগীকে চিকিৎসা সেবা দিল সুফলা সমাজকল্যাণ সংস্থা না ফেরার দেশে চলে গেছে সাংবাদিক দীন মোহাম্মদ দিনু পানিতে ডুবে মৃত্যুরোধে ৩০ সংগঠন নিয়ে বাঁশখালী টাইমসের ক্যাম্পেইন পাইকগাছা জিরোপয়েন্টে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন এমপি বাবু উত্তরবঙ্গ আইনজীবী সমিতির সভাপতি হলেন যুথী, রাজশাহী মহানগর যুবলীগের অভিনন্দন রাজশাহী পুঠিয়া পূজামন্ডব পরিদর্শন করলেন এমপি মনসুর রহমান দূর্গাপুজার আদি উৎপত্তিস্থল তাহেরপুর গোবিন্দ মাতার মন্দির পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক ১২ দিনব্যাপী ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) মাহফিলে “রাসুল (দ.) বিনে আল্লাহর নৈকট্য লাভ অসম্ভব হবিগঞ্জ জেলা যুবলীগের সম্মেলন সফল করার লক্ষে প্রচার ও প্রকাশনা কমিটির জরুরী সভা

যুবককে ডেকে এনে রাতভর নির্যাতনের পর কিশোরীর সাথে বিয়ের আয়োজন

  • সংবাদটি লিখা হয়েছে : সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২
  • ৪৫ জন পড়েছে

মোঃ নিজাম উদ্দিন ভূইয়া শিপন,লক্ষ্মীপুর

লক্ষ্মীপুরে ফারুক (২২)নামের এক যুবককে কে মোবাইল ফোনে ডেকে এনে নারিকেল গাছের সঙ্গে বেধে রেখে রাতভর নির্যাতন শেষে গভীররাতে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া (১২) বছরের এক কিশোরীর সাথে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে। এঘটনায় উল্টো ছেলের পরবিারের অভিযুক্ত করে থানয় অভিযোগ দেয়ায় এলাকাবাসির মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করেছ।

ঘটনা সুত্রে জানা যায় গত ২৫ জুন শনিবার সন্ধ্যা ৭ ঘটিকায় থেকে রাত ৩ টা পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার টুমচর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড কালিরচর গ্রামের খুরশিদ মেস্তুরীর বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে।

বিসস্থ , ফারক হোসেন নোখায়ালী মাইজদিতে একটি ফার্ণিচার দোকানে নকশার কাজ করেন
ঘরের নতুন দরজার কাজ আছে বলে কালিরচর গ্রামের খোরশেদ মেস্তরী বাড়ির নুর আলমের মেয়ে আরজু মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তাকে ডেকে আনে।
দোকানে নকশার কাজে কর্মরত থাকায় ফারুক সে দিন আসতে না পারায় পরের দিন বার বার ফোন দেওয়া হলে সে কাজ শেষ করে সন্ধ্যা ৭ ঘটিকার সময় খোরশেদের ছোট ভাই নুরুল আলমের ঘরে সামনে আশার আগে পুর্ব পরিকল্পিত অনুযায়ী উতপেতে থাকা একই বাড়ির খুরশিদ মেস্তুরী এবং তার ছেলে রাজু ও আসলাম ফারুককে আটক করে চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করে গাছের সঙ্গে বেধে পেলে। পরে ইউপি সদস্য সিরাজের উপস্থতিতে রাত ৩টা পর্যন্ত ফারুকে গাছের সাথে বেধে মারধর ও নির্যাতন করলে এসময় স্থানীয়রা জানতে পেরে বাধা দিতে আসলে খোরশেদ আলমের ১২ বছরের মাদরাসা পড়–য়া ছাত্রী কিশোরী মেয়েকে( গত ১৬ জুন বৃহস্পতিবার ) অর্থাৎ ৯ দিন পূর্বে পাশবিক নির্যাতন করেছে এমন অভিযোগ এনে একটি মিথ্যা অপবাধ জড়িয়ে দেয় খোরশেদ আলম ও তার পরিবার। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজের উপস্থিতিতে বিচারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক রাত সাড়ে ৩ ঘটিকার সময় খোরশেদ আলমের ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রী ১২ বছরের কিশোরীকে দিয়ে ভুক্তভোগী ফারুকের সাথে বিয়ের আয়োজন করেন ইউপি সদস্য, এতে ফারুক রাজি না হওয়ায় তার গলায় দেশীয় অস্ত্র ঠেকিয়ে প্রাণে হত্যার ভয় দেখিয়ে স্থানীয় মৌলভী কে ডেকে এনে জোরপূর্বক বিয়ে দেন ইউপি সদস্য । এ সময় খবর পেয়ে ভুক্তভোগী ফারুকের পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গেলে তাদেরকে ও জিম্মি করে রাখার অভিযোগও উঠেছে খোরশেদ আলম ও তার ছেলে রাজু,আসলাম সহ স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজের বিরুদ্ধে। ফারুক একই গ্রামের ৮নং ওয়ার্ড দিন মজুর মজিবুল হকের ছেলে।

রাতভর ফারুককে আটক করে নির্যাতন করলেরও ফারুকের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আহম্মদ উল্লাকে এসকল বিষয়ে কোন কিছু অবহিত না করে এক তরপা ভাবে ১২ বছরের কিশোরীর সাথে বিয়ে দিয়ে বিচারের কাজসম্পর্ণ করেন ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সিরাজ উদ্দিন। এমন ঘটনার তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী ও সচেতন মহল।
স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, ফারুক দীর্ঘ ৬ বছর আগে একই বাড়ির খোরশেদের বোনের ছেলে রিপনের ফার্নিচার দোকানে নকশার কাজ করেছিলো এরই সুবাদে ওই বাড়ির সকলের সাথে তার পরিচয় হয় ,ফর্ণিচারের মালিক রিপন ব্যবসা বন্ধ করে টেকনাফ চলে যাওয়ার এক বছর পর থেকে ফারুক নোয়াখালী জেলার মাইজদিতে একটি ফর্ণিচার দোকানে নকশার কাজ করছে। সে নিজ বাড়িতে তেমন একটা আসে না ২-৩ মাস পর পর সে একদিনের জন্য বাড়িতে আসে।

ভুক্তভোগী ফারুকের মা সাহার বানু, এবং বাবা মজিবুল হক জানান, আমাদের ছেলে ফারুক ৬ বছর আগে এলাকায় রিপন এর ফার্ণিচার দোকানে থাকাকালীন সময়ে এসুবাধে রিপনের বাড়িতে যাতায়াত ছিল। কিন্তু ফরুক নোয়াখালী যাওয়ার পর থেকে গত কয়েক বছর সে ওই বাড়িতে যাওয়া আসা বন্ধ হয়ে যায় । তারা আমার ছেলেকে মিথ্যা কথা বলে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে চুরির অপবাদ দিয়ে গাছের সঙ্গে বেধে মারধর করে জোর পূর্বক ১২ বছরের এক কিশোরীর সাথে বিয়ে দিয়েছে। সিরাজ মেম্বার আমাদের কোন কথা বলার সুযোগ দেয়নি আমাদের হুমকি ধমকি দিয়ে বসে থাকতে বলেছে।

ভুক্তভোগী ফারক বলেন, আমাকে ঘরের দরজার কাজের কথা বলে ডেকে এনে চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করে। পরে রাতে মিথ্যা অপকর্মের অপবাদ দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজের উপস্থিতে আমাকে গাছের সাথে বেধে আমার গলায় দেশিয় অস্ত্র ধরে / দা ধরে একটি সাদা কাগজে সাক্ষর নিয়ে খোরশেদ আলমের ১২ বছরের কিশোরিকে বিয়ে করতে বাধ্য করে। আমি ওই দিনের পর থেকে আর এলাকায় আসিনি এখন আমার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে আমি নাকি মেয়েকে নির্যাতন করেছি।

কিশোরীর ফুফু এবং রিপনের মা হাজেরা বেগম বলেন,
ফারুক ছোট বেলা থেকেই আমার ছেলে রিপোনের ফার্ণিচারের দোকানে কাজ শিখেছ, এই সুবাদে আমার বাড়িতে আসা যাওয়া করতো কিন্তু আমার ছেলে রিপোন ৭ বছর আগে টেকনাফ চলে গেলে ফারুকও চলে যায় তার সাথে। এক বছর আমার ছেলের সাথে কাজ করার পর নোয়াখালী মাইজদিতে একটা দোকানে কাজ করছে আগে মাঝে মধ্যে আসলেও গত এক বছর থেকে সে আমার বাড়িতে আসেনা।

মেয়ের বাবা খোরশেদ মাধরের কথা স্বীকার করে বলেন,ছেলেটা আমার বাড়িতে আরো কয়েকবার আসছে তাকে আটক করার ৯ দিন আগে আমার মেয়েকে নির্যাতন করলে আমি সিরাজ মেম্বার এবং সমাজিকদের জানাই। পরে ছেলেটা আবার আমার বাড়িতে আসলে তাকে আমরা আটক করি। এর পর স্থানীয় ইউপি সদস্য এবং সমাজিকদের উপস্থতিতে মৌলভী দিয়ে বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ের পর থেকে ছেলে আমার বাড়িতে আর আসেনি তাই আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

কিশোরীর বড় ভাই আসলাম বলেন, ফারুক আমার বোনকে আমার বাড়ি থেকে উঠিয়ে নিয়ে যেতে আসলে আমরা তাকে আটক করি পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য-সহ এবং সমাজিকরা রাতে শালিশের মাধ্যমে ফারুকের সাথে আমার বোনের বিয়ে দিয়েছে। সকালে কাবিন করার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কাবিন করা হয়নি।

এদিকে সেই কিশোরী জানান, ফারুক রাতে আমাদের বাড়িতে আসলে আমার ভাইয়েরা তাকে আটক করে মারধর করে আমাকে তার সাথে বিয়ে দেয় কাবিন ও করে নাই । বিয়ের পর থেকে ফারুক আমাদের বাড়িতে আর আসেনি ।

বিয়ে পড়ানো স্থানীয় মসজিদের মৌলভী নবী হোসেন বলেন, গভীর রাতে আমাকে ঘর থেকে রাজু,কামাল,জিল্লালসহ আমাকে ডেকে নিয়ে যায়। যাওয়ার পর আমাকে বিয়ে পড়াতে বলে ইউপি সদস্য। মেয়ের বয়স কম হওয়াতে আমি রাজি না হলে খুরশিদ এবং ইউপি সদস্য সিরাজ যা হবে সব তারা বুঝবে বলে আমাকে বিয়ে পড়াতে বলে।

অন্যদিকে খুরশিদের পরিবার গাছের সাথে বেধে ফারুকে মারধরের কথা প্রথমে অস্বিকার করলেও পরে আটক করে মারধরের কথা স্বীকার করে।

এদিকে ইউপি সদস্য সিরাজ বাল্য বিয়ে দেওয়ার কথা স্বীকার করলেও মারধর করার কথা অস্বিকার করে বলেন আমি তখন ঘটনা স্থলে ছিলাম না ।

লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, এক পক্ষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত করতে গিয়ে এই বিষয়টি জেনেছি। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 Agrajatra 24
Design & Develop BY Coder Boss