Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

রামগঞ্জে ফসলি জমি ও সরকারি জায়গার মাটি খনন করে ইটভাটায় বিক্রি

লেখক:
প্রকাশ: ১ বছর আগে

Agrajatra24.com
Agrajatra 24
UX/UI Designer at - Adobe

অনুসন্ধান মূলক জাতীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা অগ্রযাত্রা

মোঃ তামজিদ হোসেন রুবেল, স্টাফ রিপোর্টার লক্ষ্মীপুর
পরিবেশ আইন অমান্য করে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলা ভাটরা ইউনিয়নের হীরাপুর ৬ নং ওয়ার্ডের চৌকিদার বাড়ির পাশে কৃষিজমি খনন করে মাটি সরবরাহ করা হচ্ছে ইটভাটায়। এতে, জমির উর্বরতা নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি পরিবেশর ভারসাম্যও হুমকির মুখে পড়েছে। পরিবেশ আইন অনুযায়ী কৃষিজমি ও সরকারি জায়গার মাটি খনন করা দণ্ডনীয় অপরাধ।

স্থানীয়দের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,ভাটরা ইউনিয়নের হীরাপুর গ্রামের বসতভিটার পাশে ৬০০ বিঘা জমি রয়েছে। ইতিমধ্যে ৬০ টি স্পট থেকে প্রায় ১৫০ বিঘা জমির মাটি কেটে নেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদ করলে মারধর ও হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে গ্রামবাসীকে।

সরেজমিনে। হীরাপুর ৬ নং ওয়ার্ডের চৌকিদার বাড়ির পাশে কয়েকটি ফসলি জমি ঘুরে দেখা যায়। এক একটি জমিতে ২ থেকে ৩টি ভ্যাকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটা হচ্ছে। ট্রলি ভরে এসব মাটি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে পাশ্ববর্তী ইটভাটাগুলোতে।

ভ্যাকু চালক রিয়াজ উদ্দিন জানান, গত দুইদিন যাবত তিনি এখান থেকে মাটি কাটছেন। প্রতিদিন শতাধিক ট্রলি ভরে পাশ্ববর্তী ইটভাটায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে । এসব জমি কৃষকদের থেকে কিনে নিয়েছেন কামাল শেখ বলে জানান তিনি।

এবিষয় মাটি ব্যবসায়ী মোঃ কামাল শেখের সাথে কথা হলে তিনি জানান। আমি জমির মালিকদের কাছ থেকে মাটি কিনে ইটভাটায় বিক্রি করে থাকি, মাটির ব্যবসা করে কোন ভুল কিছু করি না আপনার যা ইচ্ছে আপনি পত্রিকায় তাই লিখেন।

এদিকে ১০ নং ভারটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মিঠু বলেন, ইটভাটার কারনে ফসলি জমি ও রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতির বিষয়টি প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে এখনো কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়নি।

উপজেলা তাপ্তি চাকমা বলেন, ফসলি জমি থেকে মাটি কাটার বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় আইন গত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।